অনুমোদন পেল তিন বছরব্যাপী বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের শত কোটি টাকার সংস্কার কাজ

এ বছরের জুলাইয়ে শুরু হয়ে কয়েক ধাপে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত চলবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ। যেখানে গুরুত্ব দেয়া হবে মাঠ, গ্যালারি আর ফ্লাড লাইটের সংস্কারকে।

তবে আগামী বছর মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে কাজে কিছুটা গতি বাড়লেও, এরপর গুরুত্ব দেয়া হবে স্টেডিয়ামের বাহ্যিক সংস্কারকে। জানিয়েছেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের যুগ্ম সচিব শাহ আলম সরদার। সঙ্গে পুরো কাজে সচ্ছ্বতা রাখারও অঙ্গীকার তার কণ্ঠে।

৯৮ কোটি ৩৬ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়েছিলো ২০১৭ সালে। নানা জটিলতা আর দুই বছরের বেশি সময় পর অবশেষে একনেকের সবশেষ সভায় দেয়া হয়েছে বরাদ্দের চূড়ান্ত অনুমোদন। ফলে স্টেডিয়াম সংস্কার কাজ শুরু হবে আগামী মাসেই।

প্রথমধাপে হবে মাঠের সংস্কার। যেখানে থাকবে স্বয়ংক্রিয় পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা, আর পাল্টে ফেলা হবে পুরো আউটফিল্ড। পুরো না হলেও ৭৫ শতাংশ গ্যালারিতে থাকবে মেমব্রেনের ছাউনি। বসবে ২৫ হাজার নতুন চেয়ার।

লাক্স পাওয়ার বাড়াতে ৪১০টি ফ্ল্যাডলাইটের সবগুলোই পরিবর্তন করা হবে। বসবে এলইডি স্ক্রিন, ডিজিটাল বোর্ড, অ্যাথলেটিক্স ট্র্যাক, আর জেনারটের। এছাড়া মিডিয়া বক্সের সংস্কার, অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থার উন্নয়ন সহ অামূল বদলে যাবে চেনা এই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম।

আগামী বছর সারাদেশ ব্যাপি পালন করা হবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষীকির অনুষ্ঠান। মূল ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার করা হবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামটিকে। এজন্যই দ্রুততম সময়ের মধ্যে দৃশ্যমান কাজের অগ্রগতি দেখাতে চান প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের যুগ্ম সচিব শাহ আলম সরদার বলেন,

কিছু কিছু কাজ আছে আমরা আমাদের দেশীয় মালামাল দিয়েই সারতে পারি।

আগামী সপ্তাহে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সঙ্গে এ নিয়ে অনুষ্ঠানিক সভায় বসবে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। যেখান থেকে পাওয়া যাবে পুরো কাজের একটি সামগ্রিক রূপরেখা।