বাংলাদেশের ক্লাব ফুটবলকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া ম্যাজিক্যাল মারিও লেমোস

ভঙ্গুর ঢাকা আবাহনীকে নিয়ে গেলেন এএফসি কাপের নক-আউট রাউন্ডে। ইনজুরির কারণে রক্ষণে নেই তপু বর্মণের মত নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার। অপরিহার্য মিডফিল্ডার আতিকুর রহমান ফাহাদ হঠাৎই পড়লেন ইনজুরিতে।

এএফসি কাপে মিডফিল্ডের ঘাটতি মেটাতে দলে আনা হলো ব্রাজিলিয়ান প্রিওরি’কে। দুই ম্যাচ খেলে প্রিওরি’ও পড়লেন ইনজুরিতে। ফিরে গেলেন দেশে।

ডিফেন্স ও মিডফিল্ড নড়বড়ে। মিনার্ভা পাঞ্জাবের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ জিততেই হবে এমন সমীকরণের আগে স্ট্রাইকার সানডে ভিসা না পাওয়ায় তার ভারত যাওয়া হচ্ছেনা।

চারজন বিদেশির মধ্যে দুইজন নেই মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে। দেশীয়দের মধ্যে সেরা দুইজন তপু ও ফাহাদ নেই। এত নেই এর মধ্যেও পর্তুগিজ কোচ ম্যাচের আগের দিন মিনার্ভা পাঞ্জাবকে হারানোর কথা বলেন।

তার দল সেটা করে দেখিয়েছেও। বড় বাজেটের লিগ ইন্ডিয়ান সুপার লিগের গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়ন এফসিকে টপকে সাউথ এশিয়া জোন থেকে আবাহনীকে নিয়ে গেলেন নক-আউট রাউন্ডে।

 

 

লেমোসের কোচিং ক্যারিয়ারে তেমন উজ্জ্বলতা নেই। তবে ৩২ বছর বয়সী এই পর্তুগীজ কোচের ভালো কিছু করার তীব্র ইচ্ছা সব সময় দেখা গেছে। তার সেই একাগ্র মানসিকতা আবাহনীকে নিয়ে গেছে পরের রাউন্ডে।