লাওস বধের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামবে বাংলাদেশ ফুটবল দল

৩ জুন থেকে লাওসে গিয়ে বসে নেই কোচ জেমি ডে। নির্ধারিত সময়ের একদিন আগেই লাওসে পৌঁছে দেশটির আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাওয়ার প্রস্তুতি নেয়া শেষ।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের মূল মঞ্চে উঠতে লাওস বধ ছাড়া কোনও উপায় নেই। আজ ৬ জুন বিকেলে ভিয়েনতিয়েনে জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

ম্যাচটাকে ঘিরেই যত পরিকল্পনা জেমি ডে’র। এক বছর আগে লাওসের মাটিতেই ২-২ ড্র করেছিল বাংলাদেশ এবং পরবর্তীতে বাংলাদেশে লাওসকে ১-০ ব্যবধানে হারানোর সুখস্মৃতিতো আছেই। সঙ্গে এবার থাইল্যান্ডে ১০ দিনের বিশেষ ক্যাম্প বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগাবে টাইগারদের। লাওসকে সমীহ করেই জেমি ডে জানান,

 

লাওস অনেক শক্তিশালী দল। একটা ফাইটিং ম্যাচই হবে। এই ম্যাচটা জিততে আমরা সবকিছুই দিবো।

 

দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও জয় ছাড়া কিছু ভাবছেন না,

 

লাওস ভালো দল। আমাদের দলও ভালো প্রস্তুতি নিয়েছে। আমরা জেতার জন্য সবকিছুই করবো। ভুল না করে জিততে চাই।

 

এদিকে প্রায় দুই মাস আগে থেকেই বিশ্বকাপ প্রাক বাছাইয়ের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে লাওস। মাঝে নিজেদের যোগ্যতা বিচারে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচও খেলে ফেলেছে তারা।

প্রথম ম্যাচে এক গোলে পিছিয়ে থেকে প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে লঙ্কান বধ করেছে লাওস দল। দ্বিতীয় ম্যাচে ড্র। ঠিক এমন মুহূর্তে বাংলাদেশ দুটি থাই ক্লাবের সঙ্গে খেলেছে। প্রথমটিতে ড্র ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ।

লাওস গত দুই বছরে লঙ্কানদের হারানো ছাড়া কোনও জয়ের দেখা পায়নি। এদিকে ধারাবাহিক জয় পাওয়া বাংলাদেশকে সমীহ করছে লাওসের কোচও,

 

বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-২৩ এর ভালো কিছু ফুটবলার আছে। সিনিয়র ভালো খেলোয়াড় আছে। কেউ বলতে পারবে না আসলে কে ফেভারিট। তবে, হোস্ট হিসেবে দর্শকদের সামনে আমরা একটু সুবিধা পেতে পারি।

 

১১ জুন ঢাকায় লাওসকে আতিথ্য দেবে বাংলাদেশ।