পিচে বল ঘুরবে ভালভাবেই

ম্যাচের আগে মাহমুদউল্লাহ ইঙ্গিত দিলেন, চট্টগ্রামে থাকবে স্পিনারদের রাজত্ব।

১৬ জোনের স্কোয়াডে ৬ জন স্পিনার বাংলাদেশে। চট্টগ্রামের উইকেট যে স্পিন বান্ধব হবে, সেটা আঁচ করা যাচ্ছিল দল ঘোষণার পর থেকেই। মাহমুদউল্লাহ নিজেই জানালেন, বোলিং বিভাগের মূল শক্তি হবেন স্পিনাররাই, ‘চট্টগ্রামের পিচ সচরাচর যেরকম হয় ওরকমই থাকবে, স্পিনও ধরবে। ছয়জন স্পিনার থাকায় সবাই মোটামুটি বুঝতেই পারছেন পিচ কেমন হবে! আমরা ঘরের মাঠে স্পিনারদের ওপর বেশি নির্ভর করি। এই বিভাগে আমরা যথেষ্ট শক্তিশালীও। সাকিব যদিও নেই, তাও অন্যরা সেই অভাব পূরণ করবে।’

প্রতিপক্ষের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে দুই মাস আগেও ছিলেন তাদের ‘গুরু’। তার বিপক্ষে অধিনায়ক হিসেবে খেলতে নামলে কি বিশেষ কোনো লক্ষ্য থাকবে? মাহমুদউল্লাহ অবশ্য এসব নিয়ে একদমই ভাবছেন না, ‘না আমার ওসব নিয়ে কোনো মাথা ব্যাথা নেই। আমি চিন্তা করি যে আমি আমার দলকে কিভাবে সেরা সার্ভিসটা দিতে পারবো। আমি যদি আমার সেরা কাজটা করতে পারি তাহলেই হবে। সবাই মিলে যদি আমরা নিজেদের কাজটা করতে পারি সেটাই যথেষ্ট।’

হাথুরু বলেছেন, সাকিব না থাকায় কিছুটা পিছিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহও সাকিবের অনুপস্থিতিকে দলের জন্য বড় ক্ষতি হিসেবেই দেখছেন, ‘সাকিব আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়। সাকিবকে দলে না পাওয়া অবশ্যই বড় একটা ক্ষতি। দিনশেষে আপনাকে সব চ্যালেঞ্জগুলোই মেনে নিতে হবে এবং এগিয়ে যেতে হবে। আমি বিশ্বাস করি যে, আমরা যদি ইতিবাচক ক্রিকেট খেলি, সিদ্ধান্তগুলো সঠিক নিতে পারি এবং সেগুলো বাস্তবায়ন করতে পারি আমরা ভালো একটা ফল আশা করতে পারব।’

চার বছর পর দলে ফিরেছেন স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। সবদিক ভেবেই তার একাদশে থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানালেন মাহমুদউল্লাহ, ‘টিম ম্যানেজমেন্ট ও আমরা এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আশা করি রাতের মাঝেই আমরা সিদ্ধান্ত নিব। রাজ ভাই দীর্ঘদিন ধরেই ভালো বোলিং করে যাচ্ছেন। ৫০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁলেন। উনি অনেক বছর ধরে ক্রিকেট খেলছেন এবং অনেক অভিজ্ঞ। ভালো কম্বিনেশন যেটা হবে সেটাই দাঁড় করার চেষ্টা করবো।’

Author: Wahed Murad

I am passionate for sports , specially in cricket and so i'll do my best to development of sports. I'm also teaching English language and trained at web design and development with fine web arts.