fbpx

বৈষম্য চাননা লিওনেল মেসি

সমাজে বিদ্যমান বৈষম্য, বিশ্বজুড়ে চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে আরও প্রকট রূপ ধারণ করেছে। আর এই সামাজিক বৈষম্য দূরীকরণে সবাইকে একত্রিত হয়ে কাজ করার আহ্বানও জানিয়েছেন লিওনেল মেসি। আর্জেন্টাইন ম্যাগাজিন লা গাজেত্তা পদেরোজাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেসি বলেছেন,

“এই মহামারিতে আমাদের অবশ্যই পানি, খাদ্য ও বিদ্যুতের মতো মৌলিক প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোর চাহিদা পূরণ করতে হবে। বৈষম্য আমাদের সমাজের বৃহত্তম একটি সমস্যা এবং এটি সমাধানের জন্য আমাদের সকলের একত্রিত হয়ে কাজ করা উচিত।

আর্জেন্টিনায় এখন ডাইনিং রুম এবং পিকনিক অঞ্চলে লোকেরা যেভাবে জড়িত হচ্ছে এবং সহযোগিতা করছে, তা দেখে আমাদের প্রচুর গর্ব হয়। বিশেষত আমরা যখন কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি।”

লিও মেসি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে লিওনেল করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় আর্থিক সহায়তা করেছেন, বার্সেলোনায় একটি হাসাপাতালে ১০ লাখ ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯ কোটি ২১ লাখ টাকা) দান করেছেন তিনি। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য ৫০টি ভেন্টিলেটরও দিয়েছেন মেসি, যার মধ্যে ৩২টি দেওয়া হয়েছে রোজারিও হাসপাতালে। এছাড়া করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে স্পেনে তৈরী রেড ক্রিসেন্টের জরুরী হসপিটালেরও বড় অর্থ এসেছিল লিও মেসির কাছ থেকে।

বাংলাদেশে দারিদ্র্যতা বেড়েছে ২৯.৪ শতাংশ যেখানে বড় সমস্যা বৈষম্যতা। দাতব্য সংস্থা অক্সফামের রিপোর্ট বলছে, বিশ্বের প্রায় অর্ধেক গরীব মানুষের (৩৮০ কোটি) সম্পদের পরিমান ১ কোটি ৪০ লাখ ডলার যেটা দখল করে বসে আছেন মাত্র ২৬ জন ধনী।