fbpx

ক্যালিস ঠিক মুলবই বা পাঠ্যপুস্তকের মত

একটা সময় দক্ষিন আফ্রিকার ক্রিকেটাররা প্রচুর শট খেলা শুরু করেছিল যেটা তাদের খেলার ধরনটা বদলে দিয়েছিল। মেন্ডেলার দেশ ঐ এক থিওরিতে ওয়ান ডে ক্রিকেটে নাম্বার ওয়ানে চলে যায়। গ্রায়েম স্মিথ একবার অস্ট্রেলিয়ার সাথে ম্যাচ জয়ের পর বলেছিলেন, ”আমাকে শট খেলতে কোন চিন্তা করতে হয়না, ঝামেলা সামলানোর জন্য তো ক্যালিস আছে।”  

জ্যাক ক্যালিসের খেলা অনেকটা আপনার জাতীয় পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের মূলবইয়ের মত, সবসময় গাইড বইয়ের মত আড়ালে থেকে যেতে হয়। কিন্তু মূল কাজটা টেক্সট বুকের মত ক্যালিসও করে গেছেন দক্ষিন আফ্রিকার জন্য। ক্যারিয়ার শেষে হাজার বিশেকের বেশি রান আপনাকে সে কথায় মনে করাবে।

জ্যাককে অনেকে বোলিং মেশিন বলতেন কারণ তিনি অবোধ রোবোটের মত এক জায়গাতে বল করে যেতে পারতেন। একজন কবি যেমন যখন কলম হাতে নিয়ে বসেন তখন তাকে মনে হয় শান্ত-সাহিত্যের দুত বসে আছেন কিন্তু তার একটা লাইন হতে পারে হাজারটা সংগ্রামের চাবিকাঠি। ঠিক তেমনি যখন জ্যাক ক্যালিস বোলিং করতে রান আপ শুরু করেন তখন আপনার মনে হবে তিনি খুব বেশি কিছু হয়ত করতে পারবেন না কিন্তু পরক্ষণে তিনি কি করতে পারেন সেটা নিয়ে পরিস্কার ধারণা আপনি এসে যাবে।

এই একজন মানুষ যাকে আপনি লিখতে বসলে আপনাকে সংখ্যার সাগরে হারিয়ে যেতে হবে। হারিয়ে যেতে হবে হিসাবের কঠিন হিমবহে। ভদ্র মানুষের খেলা ক্রিকেটে মিষ্টি হাসি দিয়ে প্রতিপক্ষকে বিধ্বস্ত করে ফেলবার সবরকম উপায়ই বোধহয় জানতেন কেপ টাউনের বিখ্যাত এই মানুষটা।

কেপ টাউনের বিখ্যাত এই ক্যালিবারের জন্মদিন আজ। শুভ জন্মদিন জ্যাক ক্যালিস, আপনাকে শুভেচ্ছা।

ডেল স্টেইন, এনটিনি কিংবা মরকেলরা শতশত বল করে গেছেন প্রায় ১০০ ধরধর মাইলের গতিতে, ব্যাটসম্যান ভুল করেছেন, সেকেন্ড এর কম সময়ে কখনও ক্যাচ নিতে ভুল করেননি ক্যালিস। মার্ক বাউচার থেকে এবি ডি ভিলির্য়াস অবধি সবার পাশের ক্যাচ ধরার বন্ধু জ্যাক ক্যালিস। মনে রাখবেন, জন্টি রোডস বারবার বলেছেন স্লিপ ফিল্ডিং ক্রিকেটের সব থেকে কঠিন কাজ আর সে কাজের নিয়মিত শিল্পী জ্যাক ক্যালিস।

আজকের সাকিব বিশ্বের প্রায় সব অলরাউন্ডারকে কোন না কোনভাবে ধরে ফেলেছেন শুধূ এই মানুষটা বাদে। পরিসংখ্যান নিয়ে যদি আপনি হিসাব কষতে শুরু করেন দিন শেষে হয়ত আপনি বলতে বাধ্য হতে পারেন জ্যাক ক্যালিস সবর্কালের সেরা অলরাউন্ডার।

প্রতি বছরেই একবার করে ১৬ অক্টোবর আসবে আর জীবন্ত এই কিংবদন্তিকে নিয়ে লেখা হবে অমর কাব্য। অমর কারণ তার প্রতিটা রান, প্রতিটা শতক আর উইকেট আপনাকে দিবে ক্রিকেটের অমর স্বাদ। জ্যাক ক্যালিস এর কাছে ক্রিকেট আজীবন ঋনী থেকে যাবে। কারণ ক্রিকেট তাকে দিতে পারেনি একটি বিশ্বকাপ বরং বিশ্বসেরা এই ক্রিকেটারকে সবসময় ‘চোকার’ বানিয়ে ছেড়েছে ভদ্র লোকের খেলা ক্রিকেট।

কি আর করা, এটাই তো নিয়ম তা না হলে লিওনেল মেসি কিংবা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোরা কেন বিশ্বকাপ জিততে পারেননি। এই আক্ষেপ থেকেই তো পিপাসার শুরু, এই পিপাসা যে মিটাবার নয়….