fbpx

হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে দুই ম্যাচ পর জয়ে ফিরলো চেন্নাই

সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছিলো না আইপিএলে ৩ বারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংসের, সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে দলের স্তম্ভ মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। তবে আপাতত কিছুটা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারবেন ধোনি, ৭ ম্যাচে ২ জয় পাওয়া দলটি টানা দুই হারের পর আজ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে ২০ রানের জয় তুলে নিয়েছে।

পুঁজিটা খুব বেশি ছিল না, আইপিএল তো বটেই টি-টোয়েন্টিতেই এই রান ডিফেন্ড করা মোটামুটি কঠিনই। তবে চেন্নাইয়ের ভরসার জায়গা হয়েছিল দলের বোলিং আক্রমণ ও কিছুটা মন্থর হয়ে যাওয়া দুবাইয়ের উইকেট, শেষ পর্যন্ত ১৬৭ রানই জয়ের জন্য যথেষ্ট প্রমাণ করেছেন চেন্নাই সুপার কিংসের বোলাররা।

১৬৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দিতে ব্যর্থ হন সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টো। ২১ বল স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতে আসে মাত্র ২৩ রান, আজও মন্থর গতির ব্যাটিং করেছেন অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। স্যাম কারেনের হাতে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১৩ বল খেলে করেছেন মোটে ৯ রান, ছিল না কোন ছয় বা চারের মার।

একই ওভারের শেষ বলে ডোয়াইন ব্রাভোর থ্রোয়ে রান আউটে কাটা পড়েন ৩ বলে ৪ রান করা মানিশ পান্ডে, পরিস্থিতির দাবী মেটাতে ব্যর্থ হন জনি বেয়ারস্টোও। রবিন্দ্র জাদেজার বলে বোল্ড হওয়ার আগে ২৪ বল খেলে ২ চারে করেন ২৩ রান, ১০ ওভারে ৫৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। চতুর্থ উইকেটে প্রিয়াম গার্গকে নিয়ে ৪০ রানের জুটি গড়েন কেন উইলিয়ামসন, ফিফটি তুলে নিয়ে হায়দ্রাবাদকে ম্যাচে টিকে রাখেন তিনি।

বিজয় শঙ্কর ৭ বলে ১২ ও কেন উইলিয়ামসন ৩৯ বলে ৭ চারে ৫৭ রান করে আউট হলে ম্যাচে জয়ের আশা ফিকে হয়ে যায় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের, তবে কর্ণ শর্মার ওভারে ২ চার ও ১ ছয়ে রশিদ খান ও শাহবাজ নাদিম ১৯ রান তুলে নিলে ম্যাচে উত্তেজনা ফিরে আসে। শেষ দুই ওভারে জয়ের জন্য ২৭ রানের সমীকরণে নেমে আসে, তবে পরের ওভারে মাত্র ৫ রান দিয়ে রশিদ খানকে আউট করে ম্যাচটাকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেন শারদুল ঠাকুর।

  গাইকোয়াদের ব্যাটিং নৈপুণ্যে আরসিবির বিপক্ষে সহজ জয় চেন্নাইয়ের
ছবি – আইপিএল

৮ বলে ১ চার ও ১ ছয়ে ১৪ রান করে হিট উইকেট হয়ে ফিরেন রশিদ খান, শেষ ওভারে ২২ রানের সমীকরণ আর মেলানো হয়নি সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ দলের। ডোয়াইন ব্রাভোর করা শেষ ওভারে ১ রানের বেশি নিতে পারেননি শাহবাজ নাদিম ও সান্দিপ শর্মা, হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে চেন্নাইয়ের জয় আসে ২০ রানের ব্যবধানে।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, টানা ব্যর্থতার পর ওপেনিং জুটিতে পরিবর্তন আনে চেন্নাই সুপার কিংস। ফাফ ডু প্লেসিসের সাথে ক্রিজে আসেন স্যাম কারেন, পেস বোলিং অলরাউন্ডার স্যাম কারেন ২১ বলে ৩ চার ও ২ ছয়ে ৩১ রান করলেও ডু প্লেসিস গোল্ডেন ডাক হয়ে ফিরেন; দুজনকেই আউট করেন সান্দিপ শর্মা।

ছবি – আইপিএল

এরপর শেন ওয়াটসনের ৩৮ বলে ১ চার ও ৩ ছক্কায় ৪২, আম্বাতি রায়ডুর ৩৪ বলে ৩ চার ও ২ ছয়ে ৪১ ও শেষ দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনির ১৩ বলে ২ চার ও ১ ছয়ে ২১ এবং রবিন্দ্র জাদেজার ১০ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে অপরাজিত ২৫ রানের ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রানের সংগ্রহ গড়ে চেন্নাই সুপার কিংস। সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে সান্দিপ শর্মা, খলিল আহমে ও নাটারাজান প্রত্যেকেই ২ টি করে উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

চেন্নাই সুপার কিংস ১৬৭/৬ (শেন ওয়াটসন ৪২, আম্বাতি রায়ডু ৪১, স্যাম কারেন ৩১, রবিন্দ্র জাদেজা ২৫*, মহেন্দ্র সিং ধোনি ২১, সান্দিপ শর্মা ২/১৯, নাটারাজান ২/৪১, খলিল আহমে ২/৪৫)।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ১৪৭/৮ (কেন উইলিয়ামসন ৫৭, জনি বেয়ারস্টো ২৩, প্রিয়াম গার্গ ১৬, রশিদ খান ১৪, ডোয়াইন ব্রাভো ২/২৫, কর্ন শর্মা ২/৩৭, শারদুল ঠাকুর ১/১০, স্যাম কারেন ১/১৮)।

ম্যাচ সেরাঃ রবিন্দ্র জাদেজা (চেন্নাই সুপার কিংস)।