fbpx

আর্জেন্টিনার জন্য অপেক্ষা করছে বলিভিয়ার মরন ফাঁদ

২০২২ কাতার বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্ব। লিওনেল মেসির একমাত্র গোলে প্রথম ম্যাচ ইকুয়েডরের বিপক্ষে জিতেছে আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচ জিতে স্বস্তিতে থাকার কথা ছিল মেসিদের। কিন্তু সেটি আর হচ্ছে না। দুশ্চিন্তা ঘুম কেড়ে নিচ্ছে আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের।

শক্তির দিকে দিয়ে বেশ এগিয়ে আর্জেন্টিনা। সর্বশেষ ১০ দেখায় আর্জেন্টিনা জিতেছে ৪ টিতে, অন্যদিকে বলিভিয়া জিতেছে ২ টি। আর্জেন্টিনা গোলও করেছে ২১ টি। তাহলে দুশ্চিন্তা কিসের? প্রতিপক্ষ নয়, আর্জেন্টিনার দুশ্চিন্তার কারণ বলিভিয়ার লা পাজের কুখ্যাত হার্নান্দো সাইলেস স্টেডিয়াম। এর আগে বহু দলের খেলোয়াড়েরা সুস্থ শরীরে এখানে খেলতে এসে কোন প্রকার ইঞ্জুরি ছাড়াও স্ট্রেচারে করে মাঠ ছেড়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নিজেদের ২য় ম্যাচে ১৩ তারিখ বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাতে বলিভিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামবে আর্জেন্টিনা। এ ম্যাচে মেসিদের আতিথিয়েতা দিবে বলিভিয়া। ম্যাচটি হবে বলিভিয়ার হার্নান্দো সাইলেস স্টেডিয়ামে। ফুটবল বিশ্বে যা লা পাজ স্টেডিয়াম নামেই বহুল পরিচিত।

গত কয়েক দশকে বলিভিয়ার ফুটবলে অভূতপূর্ব উন্নয়ন ঘটায় আনাচে-কানাচে গড়ে উঠেছে অনেক স্টেডিয়াম। তন্মধ্যে লা পাজ অন্যতম। বিশেষ কারণে লা পাজ স্টেডিয়ামটির কুখ্যাতি রয়েছে। সমূদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩৬৫০ মিটার উঁচুতে হওয়ায় মানুষের কাছে স্টেডিয়ামটি বিশেষভাবে পরিচিত পেয়েছে।

স্টেডিয়ামটি সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে পাহাড়সম উচ্চতায় অবস্থিত। যার ফলে সেখানে বায়ুর চাপ অত্যন্ত কম। বাতাসের প্রবাহ কম থাকায় শ্বাস-প্রশ্বাসে প্রচুর অসুবিধা হয়। ফলে সমতলভূমির খেলোয়াড়দের জন্য এখানে খেলা মারাত্মক চ্যালেঞ্জিং বিষয়। এখানে অন্যান্য দল খেলতে আসলে সঙ্গে করে অক্সিজেন মাস্ক নিয়ে আসেন। একবার এখানে খেলতে এসে নাভিশ্বাস উঠে গিয়েছিল ব্রাজিলেরও।

ম্যাচ শেষে এভাবেই মাঠে লুটিয়ে পড়ে নেইমার সহ কয়েকজন ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড়

ম্যাচের আগে এবং পরে ব্রাজিল দলকে অক্সিজেন মাস্ক পরিহিত অবস্থায় দেখা যায়। কোনমতে ম্যাচ শেষে মাঠেই লুটিয়ে পড়ে কয়েকজন ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড়। ২০০৭ সালে ফিফা এই মাঠে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। যদিও পরে তা কার্যকর হয়নি।

  ২০২৭ নারীদের বিশ্বকাপ নিয়ে বিড করেছে জার্মানি, নেদারল্যান্ড ও বেলজিয়াম

২০০৯ সালে এই মাঠে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচ খেলেছিল আর্জেন্টিনা। কোচ দিয়াগো ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনা সেবার শক্তির বিচারে এগিয়ে থেকেও বলিভিয়ার কাছে হেরেছিল ৬-১ গোলে। গোল নয় জীবন নিয়ে ম্যাচ শেষ করাই সেবার বড় চ্যালেঞ্জ ছিল আর্জেন্টিনার জন্য। কয়েকজন খেলোয়াড় মাঠেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। এরপর ফুটবল বিশ্ব বুঝতে পারে যে লা পাজে ৯০ মিনিট ফুটবল খেলা কতটা কঠিন! যদিও স্থানীয়দের জন্য ব্যাপারটি তেমন কঠিন নয়।

এবারও আর্জেন্টিনার জন্য অপেক্ষা করছে লা পাজ স্টেডিয়ামের মরন ফাঁদ। এখানে ম্যাচ হার না হলেও অন্তত ড্র হলেও করতে চাইবে আর্জেন্টিনা। বলিভিয়া ইতোমধ্যে ব্রাজিলে গিয়ে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচ খেলে এসেছে। ৫-০ গোলে বলিভিয়াকে বিধ্বস্ত করে দিয়েছে ব্রাজিল।

লা পাজের এই ম্যাচের ফল দিয়ে আর্জেন্টিনা ম্যাচের ফলকে বিচার করা ঠিক হবে না এই মাঠের উচ্চতার কারণে। এমনই মতামত দিয়েছেন অনেক ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

বিস্তারিত