তামিমের ব্যাটিংয়ের ধরণ নিয়ে কথা বলেছেন সালাহউদ্দিন

তামিমের ব্যাটিংয়ের ধরণ নিয়ে কথা বলেছেন সালাহউদ্দিন

বাংলাদেশ তো বটেই বর্তমানে বিশ্বেরই অন্যতম সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল, দেশের হয়ে ব্যাটিংয়ে অধিকাংশ রেকর্ডই তার দখলে। সেই সাথে ক্রিকেট ইতিহাসেরই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি তার দেশের হয়ে তিন সংস্করণেই সর্বোচ্চ রান স্কোরিং এর কৃতিত্ব দেখিয়েছেন।

এতসবের পরেও তামিমকে নিয়ে সমালোচনা মোটেও কম হয় না, সেটা অবশ্য তার ব্যাটিংয়ের ধরণ নিয়ে। সমর্থকদের অভিযোগ ব্যক্তিগত স্বার্থে ধীর গতিতে ব্যাটিং করে থাকেন তামিম ইকবাল, যেটার প্রভাব দল ও ব্যাটিং পার্টনারের (সঙ্গী) উপর পরে। তামিমের ব্যাটিং কৌশল হলো, প্রথম দিকে উইকেটে থেকে ধীরে ধীরে ইনিংস গড়া। ধীরগতির ব্যাটিংয়ের কারণে বল ও রানের একটা বড় পার্থক্য দেখা দেয়, তিনি চেষ্টা করেন শেষ দিকে তা পুষিয়ে দেওয়ার।

তামিমের পুষিয়ে দেওয়ার সক্ষমতা নিয়ে কারও কোন সন্দেহ নেই, কিন্তু তার ধীরগতির শুরু কারণে শুরু থেকেই চাপে পড়ে যায় দল ও তার ব্যাটিং সঙ্গী। যেটা তামিমের সঙ্গীদের ব্যাটিংয়ে ব্যাপক প্রভাব ফেলে, অনেক সমালোচনা স্বত্বেও তিনি তার ব্যাটিংয়ের ধরণ থেকে সরে আসেননি। দলের প্রয়োজন ও টিম ম্যানেজমেন্টের চাওয়া থেকেই এমন ব্যাটিং করেন বলে একাধিক বার সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন তামিম। তবে সমর্থকেরা সেটা যে খুব একটা আমলে নেন তা বলা যাবে না, কারণ তাদের মতে তামিমের ব্যাটিং বর্তমান ক্রিকেটের সাথে মানানসই নয়।

তামিমের গুরু মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন কৌশলগত কারণে সরাসরি তামিমের ব্যাটিং নিয়ে কথা না বললেও দলের স্বার্থ ও টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনাকে গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছেন। সম্প্রতি ক্রিকেট সম্পর্কিত ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপ “১৬ কোটি মানুষের প্রাণ সাকিব আল হাসান এর নিয়মিত আয়োজন ক্রিকেট আড্ডা অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিষয়ে কথার এক ফাঁকে তামিম ইকবালের ব্যাটিংয়ের ধরণ প্রসঙ্গে নিজের মতামত তুলে ধরেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটে গুরু হিসেবে পরিচিত মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন।

রান দলের কাজে আসছে কি না সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন বলেন, “সবার আগে গুরুত্বপূর্ণ আপনি রান করতেছেন কি না, আর যে ফর্মেটে খেলছেন সে ফর্মেটের সাথে আপনার ব্যাটিং যায় কি না। আমার মনে হয় যদি টিমের লাভ হয় তাহলে সেটাই ঠিক আছে, ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিম কিন্তু আগে এতটা ধারাবাহিক ছিল না। একজন ওপেনার আপনাকে যখন ভালো একটা শুরু এনে দিবে তাহলে কিন্তু পুরো দলই একটা ভিত্তি পেয়ে যাবে। পরের ব্যাটসম্যানদের খেলাটা সহজ হবে।”

মানুষের ভালো লাগাটা গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু পারফর্ম করতে না পারলে তার কোন গুরুত্বপূর্ণ নেই বলে জানিয়েছেন সালাহউদ্দিন। তিনি বলেন, “আমার মনে হয় যে, ঠিক আছে মানুষের ভালো লাগাটা গুরুত্বপূর্ণ। বিনোদন পেলে দর্শক হয়তো দুইটা শট দেখে তালি দিবে, কিন্তু আপনি যখন পারফর্ম করতে না পারবেন, আপনি যদি রান না করেন তাহলে সমালোচনা হবে। রান করাটা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের চেয়ে যাদের বোঝার দরকার সেটা হলো টিম ম্যানেজমেন্ট, তারা যদি বলে এভাবে খেলতে হবে তাহলে সেটাই ঠিক।”

টিম ম্যানেজমেন্টের পরিকল্পনাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন। তিনি আরও বলেন, “এটা (পরিকল্পনা) পুরোটাই টিম ম্যানেজমেন্টের উপর নির্ভর করে। প্রতিটা টিমেরই নির্দিষ্ট একটা ফর্মুলা থাকে, স্ট্যাটেজি থাকে যে আমার এই প্লেয়ারটা এভাবে খেলবে। তাদের সেভাবেই খেলতে হয়, আমরা বাহিরে থেকে যত চিল্লাচিল্লি করি না কেন কোন লাভ নেই। তামিমের খেলার সাথে যদি টিম ম্যানেজমেন্টের স্ট্যাটেজির মিলে যায় তাহলে সেটাই ঠিক।”

মানুষ মারকাটারি ব্যাটিং মনে রাখলেও ধারাবাহিকতাই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন। এক্ষেত্রে মোহাম্মদ আশরাফুলের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, “মানুষের দেখার যে চিন্তাটা যেমন, আশরাফুলকে সবাই মনে রাখে কেন? আশরাফুল যে কয়েকটা ইনিংস খেলেছে সব কিন্তু চার ও ছক্কায় সাজানো, সিঙ্গেলস নিয়ে কিন্তু কোন ইনিংস নেই। এসব জিনিস মানুষ খুব মনে রাখে, সবাই ভাবে আরে কি এক্সাইটিং ইনিংস। আলটিমেটলি ধারাবাহিকতাটাই কিন্তু সবচেয়ে বেশি জরুরি, হঠাৎ করে একটা সেঞ্চুরি মেরে দিয়ে আর কোন খোঁজ থাকছে না এটা দলের জন্য ভালো কিছু বয়ে আনে না।”

বর্তমানে সিনিয়র ব্যাটসম্যানদের অভিজ্ঞ উল্লেখ করে মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন বলেন, “এখনকার ব্যাটসম্যানদের স্কিল লেভেল অনেক বেশি হাই, তাই ওদের ব্যাটিংয়ে মারকাটারি সেই ভাবটা দেখা না গেলেও ঠিকই বড় ইনিংস খেলে ফেলছে। আমার মনে হয় এগুলো (স্ট্রাইকরেট নিয়ে সমালোচনা না করে) চিন্তা না করলেই ভালো, কারণ তারা এখন অনেক ম্যাচিউরড। একেকজন ১৪-১৫ হাজার আন্তর্জাতিক রান করে ফেলেছে, ব্যাটিংটা আমাদের চেয়ে অনেক ভালো বোঝে।”

CATEGORIES
TAGS