ড্রেসিং রুমে ক্যামেরা! করণীয় ঠিক করতে বৈঠকে ইপিএলের ক্লাবেরা

ড্রেসিং রুমে ক্যামেরা! করণীয় ঠিক করতে বৈঠকে ইপিএলের ক্লাবেরা

প্রিমিয়ার লীগের ক্লাবগুলি আগামী বৃহস্পতিবার আলোচনায় বসবে, এ সিজনের পর্দা যদি নেমে যায়, তাহলে করণীয় কাজগুলো ঠিক করতে৷

সিজন যদি শেষ না করা যায়, লীগ টেবিল কিভাবে সম্পন্ন  করা হবে, সেটার পক্ষে প্রত্যেক ক্লাবই কথা বলবে। যদিও আশা করা হচ্ছে, রিলেগেশনে সমস্যা আসবে না।

নতুন করে শুরু করা এই সিজনের প্রথম কয়েকটি রাউন্ডের জন্যে ফিক্সার ও প্রস্তুত করা আছে সাথে প্রস্তুত “কিক-অফ” টাইম আর আছে সম্প্রচারের সময় ও।

দুটো ম্যাচের উদ্বোধনী খেলা আগামী ১৭ই জুন শুরু করার কথা আছে, তার সাথে সেই সপ্তাহের ফিক্সচার ও তৈরী আছে। খেলার দিন সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খেলা চলবে বলে জানিয়েছেন ক্লাবের মালিকেরা।

ম্যাচের দিন স্টেডিয়াম এ লোকসংখ্যা নিয়ে সব ক্লাবের কাছে পাঠানো এক ডকুমেন্ট অনুযায়ী, মাঠে দর্শক হতে পারবে সর্বোচ্চ ৩০০।

প্রিমিয়ার লীগের চিফ এক্সিকিউটিভ রিচার্ড মাস্টার্স বিবিসি স্পোর্টস কে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, “যদি কোভিড-১৯এর কারণে সিজন বাদ দিতে হয়, সেটাকে প্রত্যেকটি ক্লাবের মধ্যে আলোচনা করা হবে“।

যদিও কিছু ক্লাব এই রিলেগেশন বাতিল করতে চায়, তবুও প্রিমিয়ার লীগের সেরা’রা এই সিজন আগামী মাসের শেষের মধ্যেই শেষ করতে চায়। তারা সম্প্রচারকারীদের বাড়তে থাকা পেমেন্ট এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নিতে চায়।

কয়েক সপ্তাহের ‘নিউট্রাল ভেন্যু’ এর প্রোপোজালের আলোচনার পর বিবিসি বুঝতে পেরেছে যে বাকি ৯২ টা খেলা হোম আর এওয়ে গ্রাউন্ডেই হবে। কিন্তু প্রিমিয়ারলীগ এর কর্তারা করোনাভাইরাসের কথা মাথায় রেখে নিউট্রাল গ্রাউন্ড ঠিক করার জন্যে রূপরেখা দেবেন। নিউট্রাল ভেন্যু ঠিক করার ক্ষেত্রে কিছু রূপরেখার বদল হবে, এজন্যে এ ব্যাপারে ক্লাব ভোট দেবে।

মিটিং এ ড্রেসিং রুমে ক্যামেরা বসানো নিয়ে কথা উঠেছিল, যদিও সেটা সম্ভব বলে মনেহয়না। প্রিমিয়ারলীগের হর্তাকর্তারা চাইছেন ফ্যান দের অন্তর্ভুক্ত করতে।

ইউরোপীয় ফুটবল ক্লাব গুলি ভক্তদের জড়িত করার জন্যে বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করেছে ইতিমধ্যেই। ড্যানিশ সুপারলীগাতে র‍্যান্ডার্স এর বিপক্ষে ম্যাচে এজিএফ আরহাসদের একটি ভার্চুয়াল গ্রান্ডস্ট্যান্ড এর ব্যবহার করতে দেখা যায়।

  নতুন জয়ে বার্সা-রিয়ালের পয়েন্ট ব্যাবধান এখন সাত

ফ্যানদের কার্ডবোর্ড কাট-আউট ও বিবেচনা করছে ক্লাবেরা। কিন্তু যে বড় স্ক্রিনগুলি আছে, সেগুলোর ব্যাবহার অপরিহার্য ভাবা হচ্ছে এখন পর্যন্ত।
প্রিমিয়ার লীগ শুরু হবার জন্যে লীগের থেকে ১১৯৭ জন পরীক্ষার পর একজন পজিটিভ (করোনা) রোগী পাওয়ার ব্যাপারটি ভূমিকা রাখছে।

  • Saira Mahi, Special correspondent

CATEGORIES