মার্কিন বর্নবাদী ইস্যুতে সতর্ক মন্তব্য ফিফার, সোচ্চার ক্রীড়া জগত

মার্কিন বর্নবাদী ইস্যুতে সতর্ক মন্তব্য ফিফার, সোচ্চার ক্রীড়া জগত

ফিফা বরাবর ই এর প্লেয়ারদের যে কোনো ধরণের, “রাজনৈতিক, ধর্মীয় কিংবা ব্যাক্তিগত স্লোগান, উক্তি অথবা ছবি” ব্যাবহারে বাধা দেয়৷। কিন্তু প্রায় বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়েরা এই সপ্তাহে জার্মানীর বুন্দেসলীগার ম্যাচ গুলোতে প্রতিবাদ করেছে মার্কিন পুলিশের হাতে হত্যার ঘটনাতে। গত রোববার বরুসিয়া ডর্টমুন্ড এর জেডন স্যাঞ্চো আর আশরাফ হাকিমী নিজেদের আন্ডারশার্টের উপর একটি কথা লিখেছে, “জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড”

ফিফা গত মঙলবারের একটি উক্তি তে বলে তারা খেলোয়াড়দের জর্জ ফ্লয়েডের ব্যাপারে অনুভূতি ও চেতনার গভীরতা কে পুরোপুরি বুঝতে পারছে।
এটাও বলা হয় যে, কোনো নিয়মকে প্রক্রিয়াবদ্ধ করা মূলত ঘরোয়া লীগের পরিচালকদের দায়িত্ব, কিন্তু ফিফা তাদেরকে মানবিক দিক বিবেচনা করে, এমন প্রসঙ্গে সহানুভূতিশীল সিদ্ধান্ত গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন।

তারা আরো বলেন “ফিফা সম্পূর্ণ ভাবে শ্রেনীবৈষম্য, বর্নবাদীতার বিপক্ষে অবস্থান করছে। ফিফা প্রায়ই নিজেদের পক্ষ থেকেই খেলার মাঝেই বর্নবাদীতার বিপক্ষে স্পষ্ট প্রচারণা করেছে।

এদিকে ক্রিকেটের সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্যাপ্টেন ড্যারেন স্যামি, সমগ্র ক্রিকেটের পরিচালক ও সদস্যদের এই সামাজিক অন্যায়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে আহবান করেছেন।

দুটি টি-টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ডকাপ টাইটেল জেতা এই অলরাউন্ডার আরো বলেন ” এখনই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের থেকে শুনতে চাই আমরা, এটা চুপ থাকার সময় নয়”।

তার সাবেক টিমমেট ক্রিস গেইল একটা স্পষ্ট বার্তা পোস্ট করেন এই লিখে যে “কালো মানুষের জীবন ও অন্যান্য মানুষের জীবনের মতই গুরুত্বপূর্ণ। ”

ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড টুইটারে জস বাটলার, স্পিনার আদিল রশিদ এবং জফ্রা আর্চারের ছবির মাধ্যমে এই বার্তা দেন, “আমরা বৈষম্যের বিপক্ষে, আমরা বর্ণবাদীতার বিপক্ষে”।

 

ব্রিটিশ রেসিং ড্রাইভার লুইস হ্যামিলটন কড়া সমালোচনা করেন এই প্রসঙ্গের এবং জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে আলোচনা না করায় এই খেলাকে তিনি ” White dominated sport” হিসেবে উল্লেখ করেন।

ফেরারির চার্লস লেকলার্ক টুইটারের মাধ্যমে বলেন “এই প্রসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের চিন্তাভাবনাকে প্রকাশ করতে তিনি শুরুতে অস্বস্তি বোধ করেন,কিন্তু তিনি উপলব্ধি করেছেন এটা সম্পূর্ণ অন্যায় ছিলো।”

  বাতিলের অপেক্ষায় এশিয়া কাপ, আইপিএল নিয়েই ভাবছে ভারত

জর্জ ফ্লয়েড ছিলেন এ্যামেরিকার মিনেসোটায় একজন কালো শরীরের মানুষ, যেমন আমরা বাদামী শরীরের মানুষ, কেউ কেউ সফেদ শরীরের মানুষ। তাকে গ্রেফতার করার সময়ে পুলিশ অফিসার ডেরেক শভিন, তার হাতে হ্যান্ডকাফ রেখে, মাটিতে উল্টোমুখী শুইয়ে ঘাড়ের উপর ঠিক আট মিনিট ছেচল্লিশ সেকেন্ড হাটুতে ভর করে থাকেন। উল্লেখ্য এই যে, তাকে বাজারে বিশ টাকার জাল নোট চালাবার চেষ্টার দায়ে গ্রেফতার করা হয়।

তার ঘাড়ের উপরিঅংশে হাটু চেপে রাখার মূহুর্তে ফ্লয়েড কয়েকবার বলেন- “আমি নিশ্বাস নিতে পারছি না। প্লিজ। আমি নিশ্বাস নিতে পারছি না।”

“I can’t breathe, please. O mama, I can’t breathe. “- George Floyd

 

সাইরা মাহি, বিশেষ প্রতিনিধি

CATEGORIES