কোহলিদের স্লেজিংয়েও অনুপ্রেরণা পান মুশফিক

কোহলিদের স্লেজিংয়েও অনুপ্রেরণা পান মুশফিক


ক্রিকেটে স্লেজিং খুবই পরিচিত ঘটনা, কখনো কখনো স্লেজিং ছাড়িয়ে যায় শালীনতার মাত্রাকেও। তবে এসবই করা হয়ে থাকে ব্যাটসম্যানদেরকে মনঃসংযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে, কিন্তু ভিরাট কোহলি ও মুশফিকুর রহিমের কথা শুনলে প্রতিপক্ষরা স্লেজিং করতে দুই বার ভাবতেও পারে।

সম্প্রতি তামিম ইকবালের অনলাইন লাইভ সেশনে আড্ডার এক পর্যায়ে আলোচনার সূত্র ধরে ভিরাট কোহলি জানান যে স্লেজিং তাকে ভালো করতে সাহায্য করে, অনুপ্রেরণা দেয়৷ এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছিলেন, কখনও কখনও মুশফিকরাও এক্ষেত্রে সহায়তা করে। উইকেটের পেছন থেকে কিছু শোনায়, তাতে আমি আরও অনুপ্রাণিত হয়ে উঠি।

ভিরাট কোহলির সেই মন্তব্যের পর বিষয়টি আলোচনায় আসে, কিন্তু সে সময় মুশফিকুর রহিমের প্রতিক্রিয়া জানা সম্ভব হয়নি। তবে সেই প্রতিক্রিয়া জানতে খুব বেশি অপেক্ষাও করতে হলো না ক্রিকেটপ্রেমীদের, একটা অনলাইন সংবাদমাধ্যমে লাইভ আড্ডায় মুশফিকুর রহিম জানিয়েছেন তিনি নন, বরং ভিরাট কোহলিই তাকে বেশি স্লেজিং করেন।

স্লেজিংয়ে খুব একটা আগ্রহ নেই জানিয়ে মুশফিকুর রহিম বলেন, স্পেশাল তেমন কিছু বলেনি। এটা তো নরমালই, বিরাট কোহলি যেটা বলেছে। এটা তো খেলার একটা ট্যাকটিকস। অনেক সময় সামনে কী আসতে পারে বা এটা ডট হলে বা বড় রান তাড়া করতে হলে বা টার্গেট সেট করতে হলে, ছোট ছোট কিছু জিনিস আছে যেগুলো রিমাইন্ডার। এগুলো যে কেউ যে কোনো সময় করতে পারে, এমনিতেও ওকে এত স্লেজিং করার মতো এত বড় খেলোয়াড় এখনও হইনি।

শুধু ভিরাট কোহলিই যে মুশফিকের কাছ থেকে সাহায্য পান সেটাই নয়, বরং কোহলির মতো তিনিও স্লেজিং থেকে অনুপ্রেরণা পান বলে জানিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। তিনি বলেন, আমিও এটি বলতে চাই। কোহলি আসার পর থেকে ভারতের বিপক্ষে যতগুলি ভালো ইনিংস খেলেছি, তার কৃতিত্বও তাকে দিতে চাই। আমি যখনই উইকেটে যাই, সে আমাকে অন্যরকম ভাবে স্লেজিং করেছে। সবসময়ই করে আসছে। আমাকে স্পেশাল নাকি জানি না, হয়তো সবাইকেই করে। কারণ মাঠে অনেক আগ্রাসী থাকে সে, চায় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে।

  সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করেই ক্রিকেট ফেরানো উচিতঃ সৌম্য

ভিরাট কোহলিরা মাঠে প্রচুর স্লেজিং করেন, যেটা তাদের বিপক্ষে ভালো পারফর্মেন্স করতে সাহায্য করে বলে জানিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। তিনি বলেন, আমাকে যতবার স্লেজিং করেছে, যেটা ওর ক্ষেত্রে হয়েছে, সেটা আমার ক্ষেত্রেও একই। আমাকেও উজ্জীবিত করেছেন অনেক বেশি। এজন্যই আপনারা খেয়াল করবেন, আমার রেকর্ড অন্য দলগুলির চেয়ে ভারতের বিপক্ষে একটু হলেও তুলনামূলক ভালো।

মুশফিকুর রহিম যে ভুল কিছু বলেননি সেটার প্রমাণ পরিসংখ্যানও দেয়, টেস্টে তার ব্যাটিং গড় ৩৬.৭৭, টি-টোয়েন্টিতে গড়  ২০.০৩ কিন্তু ভারতের বিপক্ষে সেটা টেস্টে ৫১.৮০ ও টি-টোয়েন্টিতে ৩২.৭১।


TAGS