ফিচারঃ ইডেনের বুকে সাকিব প্রলয়

ফিচারঃ ইডেনের বুকে সাকিব প্রলয়

  • 1.5K
    Shares

বাংলার ক্রিকেটের মহা স্তম্ভ তিনি, ভূমিকাটা ঐতিহাসিক চীনের প্রাচীরের ন্যায় দূর্ভেধ্য-দূর্গম! বাংলার ক্রিকেটে উদিত অসংখ্য তারার ভিড়ে তিনি এক সূর্য্যে ন্যায়৷ যার শুভ্র রশ্মি ছড়িয়েছে দূর দিগন্তে; বিশ্বজুড়ে! বিশ্বসেরার তকমায় অপার সব কীর্তিগাঁথায় সাফল্যের শেখরে সমাসীন তিনি; সাকিব আল হাসান

বাইশ গজের ভূলোকে বিমোহিত-বিমুগ্ধতা ছড়ানো এক নাম! বিশ্ব ক্রিকেটে তিনি বাংলার পথিকৃৎ-পথ প্রদর্শক। বাঘের গর্জনে বিশ্ব কাঁপাতে পথচলা তার দিগন্ত জুড়ে! বাঁহাতের কারুকার্যে বিস্মিত বিশ্বকে পরিচয় দিয়েছেন আমি বাংলার; আমি বাঘেদের একজন!

মায়াবী বিভ্রম ভেল্কিময় স্পিন ঘুর্ণিতে কিংবা উইলো হাতের মহা প্রলয়ী ঝড়োচ্ছ্বাসে, উন্মাদনার উত্তাল তরঙ্গে ভাসিয়েছেন বহুবার! শত মাইল দূরত্বেও নিদ্রাহীন বাঙালীর বাধন হারা উল্লাস আর বাধঁভাঙ্গা উচ্ছাসের উপলক্ষ তিনি অসংখ্য-অগণিত বার!

সেদিনও তার পথ চেয়ে ছিলো একখণ্ড বাংলাদেশ। লাল-সবুজের এই ব-দ্বীপের অসংখ্য চা স্টল কিংবা মুদি দোকানের টিভি পানে উৎসুক দৃষ্টিতে তাকিয়ে অগণিত চোখ। খুঁজে বেড়াচ্ছে একজনকে; হ্যাঁ সাকিব আল হাসানকেই।

খেলা চলছে কলকাতা বনাম চেন্নাইয়ের। আইপিএল -এর জমাট আসরে এই বছরে বাংলার প্রতিনিধি ওই একজনই। টস ভাগ্য জয়ে কলকাতা দলের বোলিংয়ে লগ্ন ওভারেই আক্রমণে সাকিব, অতঃপর আরও তিনটি ওভার। উইকেট আসেনি তবে রান দিয়েছেন মোটে ত্রিশখান।

যাহোক, ১৫৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে কলকাতা; ১১.৪ ওভারে উথাপ্পা ফিরলে সাকিবের আগমন ঘটে বাইশ গজে ব্যাট হাতে। শুরুটা ডট দিয়ে তবে শেষটা চারের মারে; সীমানা পারে। মাঝের অধ্যায়টা? ওটা তো চোখের শান্তি!

১৪ তম ওভারে জাদেজাকে উড়িয়ে পগারপারে সাকিব ঝড়ের পূর্ভাবাস! পরের দু ওভারে একটি করে চারে ১৪ বলে ২২ রান। মূল ঝড় বহে যায় ইনিংসের ১৭ তম ওভারে। প্রথম তিন বলে বলে তিন সংগ্রহে পরের তিন বলে সাকিবীয় প্রলয়ে ১৪ রানের সংযোজন; এক ছয়ের সাথে দুই চারের সংমিশ্রণ!

  এক যুগ ধরে চেয়েও কোচের চাকরি পাচ্ছেন না রফিক

ধারাবাহিকতায় বজায়ে স্বীয় পরের বলেও চারের মারে, শেষ চার বলে তাঁর সংগ্রহ ১৮ রান! এক বলের ব্যবধানে পরবর্তী চারটি যখন সীমানা ছুঁয়, ততক্ষণে উড়ছে জয়ের নিশান! ১২ বল হাতে, ৮ উইকেটের জয়ে ২১ বলে অপরাজিত ৪৬* সাকিবের অবদান!

৬ চার আর ২ ছক্কার ইনিংসে সাকিবের স্ট্রাইকরেট দুশো পেরিয়ে ২১৯.৫! বল হাতেও ভালো পারফর্মে দূর বাংলা থেকে ভক্তকুল আশায় বুক বেধেছিল, ম্যাচ সেরার পুরস্কারটা তাঁর হাতে দেখবে বলে। কিন্তু হায়! ভাগ্য বিধাতার ইচ্ছে খন্ডানোর সাধ্যি কার? ম্যাচ সেরার পুরস্কারটা চলে যায় উথাপ্পার দোরগোড়ায়!

তবে মন ছুঁয়ে যায় সাকিবের সেই ইনিংসটি, ব্যাটিং কারুকার্যে বিস্মিত করেছিলেন ক্রিকেটবোদ্ধাদের।ওপার বাংলার ইডেন গার্ডেন সেদিন মাতিয়েছিলো এদেশের এক বাঙাল; উচ্ছ্বাসে মাতিয়েছিলো হাজারো ভক্ত-সমর্থকদের।

 

আফফান উসামা, প্রতিবেদক


  • 1.5K
    Shares