ফিচারঃ নিয়মরক্ষার নিষ্প্রাণ ম্যাচে বাঘেদের বিশাল জয়

ফিচারঃ নিয়মরক্ষার নিষ্প্রাণ ম্যাচে বাঘেদের বিশাল জয়

  • 189
    Shares

৩৬ তম ওভারের শেষ বল, লেগ সাইডে পুল করে রান নিতে গিয়ে হঠাৎ-ই কোমরে চেপে ধরলেন সাকিব আল হাসান! গ্যালারি ছাপিয়ে শত মাইল দূরের ব-দ্বীপটাও অজানা আতঙ্কে কেপেঁ উঠলো; ভয়ের উত্তাল তরঙ্গ ছুঁয়ে গেল প্রতিটি হৃদ-স্পন্দন! ভয়ার্ত চোখ-মুখে প্রশ্ন, কিছু হয়ে গেল না তো?

দুই সপ্তাহও নেই বিশ্বকাপের; হাতছানি দিয়ে ডাকছে ইংল্যান্ড। এমন মুহুর্তে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ইঞ্জুরি নাড়িয়ে দেয় ভক্তকুল সহ দেশের প্রতিটি প্রতিটি প্রাণ-স্পন্দন! মাত্রই তো উঠে এসেছেন ইঞ্জুরি কাটিয়ে, এখন আবার কিছু হয়ে যাবে না তো?

না! তেমন কিছু হয়নি; বিশ্বকাপেও খেলেছেন। শুধু খেলেননি পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন! যাহোক, সে অন্য কথা, পরের কথা। আজ যে তার আর খেলা হচ্ছেনা; মাঠে কিছুক্ষণ শুশ্রূষা নেয়ার পর প্যাভিলিয়নের পথ ধরেছেন রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে।

তবে ততক্ষণে দলকে নিশ্চিত জয়ের পথে রেখে স্পর্শ করেছেন ক্যারিয়ারের ৪২ তম অর্ধশতক। প্যাভিলিয়নে ফেরার পূর্বে শেষ বলটাতেই এই মাইলফলক ছুঁয়ে ছিলেন মি.৭৫। বাংলাদেশ দলও তখন জয়ের সুবাস পাচ্ছিল; ৮৪ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৪৬ রান, হাতে উইকেট সাতখান।

এমন ম্যাচ কি হারা যায়? বাঘেরাও হারেনি; ৬ উইকেট হাতে রেখেই উড়িয়েছে জয় নিশান। তামিম লিটন সাকিবের অর্ধশতক আর মুশফিক রিয়াদের সমান ৩৫ রানে আয়ারল্যান্ডের দেয়া ২৯৩ রানের লক্ষ্য জয় করেছে ৬ উইকেট আর ৪২ বল হাতে রেখেই।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে আগেই; শিরোপা লড়াই বাংলাদেশ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটা ছিল তাই অনেকটা ‘নিয়মরক্ষা’র নিরুত্তাপ, নিষ্প্রাণ ম্যাচ। বাঘেদের জন্য ম্যাচটা শুধুই অনুপ্রেরণা আর সম্মানরক্ষার।

স্বান্তনার একটা জয়ের খোঁজে আয়ারল্যান্ডের শুরুতেই আক্রমণে; পাওয়ার প্লেতে দুই উইকেট হারালেও রান ৬০ ছুঁইছুঁই। মাঝের অধ্যায়টা স্টার্লিং-পোর্টারফিল্ড জুটির; বাঘ বোলারদের হতাশার! ৪৫ তম ওভারে ২৩৩ রানে যখন পোর্টারফিল্ড আউট হন ততক্ষণে ২০৪ বলে গড়ে গেছে ১৭৪ রানের অনবদ্য এক জুটি।

  সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করেই ক্রিকেট ফেরানো উচিতঃ সৌম্য

পোর্টারফিল্ডকে ফেরানোর মধ্যদিয়ে শুরু নতুন আরেকটা অধ্যায়ের, যার নায়ক মাত্র দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নামা আবু জায়েদ রাহি। তুলেছেন একে একে পাঁচটি উইকেট, ফিরিয়েছেন স্টার্লিংকেও। সেই সাথে রুখে দিয়েছেন আইরিশদের ৩০০ সংগ্রহের স্বপ্নও। তবে ২৯৩ রানের টার্গেটও কিন্তু নেহায়েত কম নয়; ভক্ত মনে তাই খানিকটা ভয়!

তবে সেই ভয় তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন তামিম, লিটন, সাকিব, মুশফিক, রিয়াদরা। ২৯২ রান তাড়ায় ব্যাটিং দেখে কখনোই মনে হয়নি জয়ের পথ হারাতে পারে বাংলাদেশ। হেসেখেলে অবলীলায় জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলেছে বাঘেরা। সেই সাথে উত্তাল-উত্তুঙ্গ আত্মবিশ্বাস নিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনাল খেলতে নামবে বাংলাদেশ।

 

আফফান উসামা, প্রতিবেদক


  • 189
    Shares