শেষ বলেই ফেলছেন মামুনুল ইসলাম

শেষ বলেই ফেলছেন মামুনুল ইসলাম


২০১৪ সালে দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম কোন ফুটবলার হিসেবে ভারতে অনুষ্ঠিত ইন্ডিয়ান সুপার লীগে খেলার সুযোগ পান বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম। ভারতের আইএফএ শিল্ডে শেখ জামালের হয়ে দারুণ খেলা উপহার দেওয়ার কারণেই অ্যাটলেটিকো দি কলকাতার নজরে পড়েন এই মিডফিল্ডার। সেবার দলের সাথে থাকলেও কোন ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি তিনি।। তবে নামের পাশে আইএসএল ট্রফি টা উজ্জল ভাবে লেখা আছে।

ক্লাব ফুটবল থেকে জাতীয় দল- সর্ব ক্ষেত্রে সেরাটা দিয়েই মাঝ মাঠে নিজের অস্তিত্ব পাকা করেছেন। হয়েছেন বাংলার কাপ্তান। তার হাত ধরেই ২০১৫ বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে রানার্সাপ হয় বাংলাদেশ। এভাবে দেখতে দেখতে সময় এসে গেছে আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানানোর।

২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে নিজের নামটা থাকলেও এ বছরের পরবর্তী ম্যাচেই ফুটবলকে বিদায় জানাতে চান এই মিডফিল্ডার। মার্চেই শেষ বিদায় বলে দিতেন তবে করোনা ভাইরাসের কারণে আপাতত ম্যাচ স্থগিত থাকায় কিছু দিনের অপেক্ষায় বেড়েছে। নিজে জায়গা ছেড়ে দিয়ে সুযোগ দিতে চান তরুণ প্লেয়ারদের। তারা যেন নিজেদের প্রমাণ করতে পারে।

আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নিলেও ক্লাব পর্যায়ে খেলা চালিয়ে যেতে চান তিনি। বর্তমানে ঢাকা আবাহনীর হয়ে চুক্তিবদ্ধ তিনি।

ব্রাদার্স ইউনিয়নের হয়ে বাংলার ফুটবলে পা দেওয়া এই মিডফিল্ডার খেলেছেন ঢাকা মোহামেডান, শেখ জামাল, চট্টগ্রাম আবাহনী, শেখ রাসেলের মত ক্লাবে। ক্লাব অর্জনেও পিছিয়ে নেয় তিনি। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ জিতেছেন ভিন্ন ভিন্ন ক্লাবে ৫ বার, ফেডারেশন কাপ ৪ বার,স্বাধীনতা কাপ ২ বার এবং সুপার কাপ ১ বার।

বাংলার ফুটবল হারাতে যাচ্ছে আরও একটি নক্ষত্র। বাংলার দর্শকেরা নিশ্চিত ভাবেই মিস করবেন মামুনুল ইসলামকে।

(ছবি অনলাইন থেকে সংগৃহীত)