ভাইকিং রুপকথা ফিরিয়ে আনা হালান্ডকে পেতে ইউরোপীয় জায়ান্টদের প্রতিযোগিতা

ভাইকিং রুপকথা ফিরিয়ে আনা হালান্ডকে পেতে ইউরোপীয় জায়ান্টদের প্রতিযোগিতা

ভাইকিংদের কথা মনে আছে? স্ক্যান্ডেনেভিয়া অঞ্চলে জন্ম হলেও কালক্রমে সাহস, বীরত্ব আর পরাক্রমে যারা নিজেদের চিনিয়েছিলেন পুরো ইউরোপজুড়ে।শারীরিকভাবে যারা ছিল প্রচন্ড শক্তিশালী, দীর্ঘকায় ও কষ্ট সহিষ্ণু।

সেই স্ক্যান্ডেনেভিয়া অঞ্চল থেকেই আরেকজন ফুটবলীয় ভাইকিং উঠে এসেছেন বিশ্ব ফুটবল দরবারে। নাম তার আর্লিং হালান্ড।

১৯৪ সেন্টিমিটার লম্বা এই নরওয়েজিয়ান সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড খেলেন অস্ট্রিয়ান বুন্দেসলীগার দল রেড বুল সালসবার্গের হয়ে। মাত্র ১৯ বছর বয়সে যিনি ইউরোপীয় ফুটবল মার্কেটে হটকেক বনে গিয়েছেন তার আশ্চর্য পারফর্মেন্সের কারণে।

অথচ চ্যাম্পিয়নস লীগের এবারের আসর শুরুর পূর্বে কিংবা বছরের শুরুতেও তাকে নিয়ে এত আলোচনা হয়নি। এই বছরের অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপের কথা মনে আছে?

হন্ডুরাসের বিপক্ষে ম্যাচে একাই ৯ গোল করে ইতিহাস তৈরি করেছিলো একজন নরওয়েজিয়ান টিনএজার। ছেলেটি আর কেউ নয় ২০১৯ যুব বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুট জয়ী আর্লিং হালান্ডই ছিল।

চলতি সিজনের চ্যাম্পিয়ন্স লীগে অভিষেকের দিনেই হালান্ড করে বসেন অসাধারণ হ্যাট্রিক। ৩৫ মিনিটের মাঝেই ফুটবলের রাজকীয় আসরে রাজকীয় অভিষেক ঘটান হালান্ড।

ঘরোয়া লীগে এই সিজনে নিয়মিত হয়েই ১২ ম্যাচে ১৫ গোল ও ৬ এসিস্ট! ঘরোয়া কাপ টূর্ণামেন্টে ২ ম্যাচে ৪ গোল!
রাজাদের লড়াইয়ের আসর চ্যাম্পিয়ন্স লীগেও অসাধারণ পারফরম্যান্স। ৪ ম্যাচে ৭ গোল, এখন পর্যন্ত এই সিজনে এখন পর্যন্ত যা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সর্বোচ্চ।

ফলাফল হঠাৎ করেই বিশ্বমিডিয়ার শিরোনামে।ট্রান্সফার মার্কেটে নিজের রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করতে তো সময়ই লাগেনি তারপর।

হালান্ডের শারিরীক সক্ষমতা আর মাঠের ক্ষিপ্রতা ও বুদ্ধিদীপ্ত চটুলতার সংমিশ্রণ তাকে বানিয়েছে অসাধারণ এক স্কোরার। ডিফেন্ডারদের দুর্গে হানা দেওয়ার অসাধারণ কৌশলেও তিনি পুরোপুরি সফল।

যার ফলে কেবল অস্ট্রিয়ান লীগেই নয়, ইউরোপের মঞ্চেও ডিফেন্ডারদের ভুগতে দেখা গেছে এই নরওয়েজিয়ান পাওয়ারহাউজ কে রুখতে। পুরো ইউরোপ টের পেয়েছে একজন নরওয়েইন ভাইকিং তাদের জন্যে হুমকি স্বরুপ হয়ে আসছে, নিজের রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে।

  ম্যানসিটির বিপক্ষে ঐতিহাসিক কামব্যাকে উলভারহ্যাম্পটন দেখাল নিজেদের শক্তি

এখনো নিজের কোন এজেন্ট নেই হালান্ডের তাই তার বাবাই ট্রান্সফার সংক্রান্ত বিষয়গুলো সামলান। সম্প্রতি হালান্ডের বাবাকে দেখা গেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ট্রেনিং সেন্টারে।

তাহলে কি ট্রান্সফার হটকেক হালান্ডকে প্রিমিয়ার লীগেই দেখা যেতে আগামী সিজনে? সেটা জানতে আমাদের অপেক্ষা করতে হবে জানুয়ারী বা গ্রীষ্মের ট্রান্সফার উইন্ডো পর্যন্ত।

error: Content is protected !!