টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে সাকিব ভাইয়ের না থাকাটা বাড়তি চাপ আমাদের জন্য – মিরাজ

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের প্রথম প্রতিপক্ষের নাম শক্তিশালী ভারত। এত বড় একটা টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ পাচ্ছেনা তাদের সবথেকে বড় ভরসা সাকিব আল হাসান। তার না থাকাটা দলের জন্য বড় চাপের কারন হবে বলে মনে করছেন মেহেদী মিরাজ। পুরো ব্যাপারটা খুলে বলতে গিয়ে তিনি জানান,

আসলে আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ এটা যে আমাদের চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। মানসিকভাবেও আমাদের শক্ত হতে হবে কারণ ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলা এত সহজ হবেনা অবশ্যই অনেক চ্যালেঞ্জ নিয়েই খেলতে হবে। আমি মনে করি আমরা সেভাবেই প্রস্তুত, আমাদের প্রস্তুতি ও অগ্রগতি যেভাবে চলছে ভালো কিছু করতে পারবো। আমরা যেভাবে আত্মবিশ্বাসী আছি, ভারতের মাটিতে শুরুটা ভালো হয়েছে। আমরা সবাই যদি যার যার বিভাগে সর্বোচ্চটা দিতে পারি আশাকরি ভালো খেলতে পারবো।

আসলে আমি লাস্ট এক সপ্তাহ খুব ভালো একটা ট্রেনিং করেছি। ফিজিক্যাল ট্রেনিং, রানিং, ব্যাটিং, বোলিং সব মিয়ে এক সপ্তাহ ভালো কাজ করেছি। আমার কোন জায়গায় দুর্বলতা আছে ব্যাটিং, বোলিং, ফিটনেস সেসব জায়গায় কাজ করেছি। ওভার অল আমি ফিটনেস ও ব্যাটিং, বোলিং নিয়ে গত এক সপ্তাহ যে কাজ করেছি সেটা ভারত যাওয়ার আগে দরকার ছিল।

আমাদের চ্যালেঞ্জ নিতে হবে, ওদের ব্যাটসম্যানরা বিশ্বমানের। আমাদের চ্যালেঞ্জটা গুরুত্বপূর্ণ, মানসিকভাবে কতটা ফিট থাকছি সেটাও গুরুত্বপূর্ণ।

*সাকিব নাই দায়িত্ব
আসলে সাকিব ভাই যখন বল করে আমার খুব ভালো লাগে। আমি ব্যক্তিগতভাবে অনেক কিছু শিখতে পারি। আমাকে ব্যক্তিগত বেশ সাপোর্ট দেয়, বিশেষ করে আমার বলে যদি কোন ঘাটতি থাকে আমাকে বলে যে এখানে সমস্যা আছে, এভাবে বল করলে ভালো হবে। আমি সেভাবে চেষ্টা করি কিন্তু সে যেহেতু নাই আমাকে সেভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে মানসিকভাবে। বিশেষ করে আমাদের এখন কোচ আছে ভেট্টোরি। আশা করি সে আমাদের সাথে কাজ করবে এবং ভালো ভালো পরামর্শ দিবে। ও যে পরামর্শ দিবে এবং টিপস দিতে সেগুলো যদি আমরা মেনে চলতে পারি আমাদের সাফল্য আসবে আশা করি।

” দলের বাইরের সময়টায় মোটিভেট
দেখেন গত দুই-আড়াই বছর আমি তিন ফরম্যাটেই খেলেছি, এখন হয়তো টেস্ট দলে আছি। এই যে সময়টা পেলাম আমার মনে হয় নিজেকে পরিপূর্ণভাবে তৈরি করতে পারছি। কারণ আমি যে লাস্ট ১০-১২ দিন যে কাজটা করেছি, আমার কাছে মনে হয় অনেকদিন ধরেই এমন একটা সুযোগ চাচ্ছিলাম, টাইম নিয়ে ব্যাটিং, বোলিং ও ফিজিক্যাল যে ঘাটতিগুলো আছে সেগুলো নিয়ে কাজ করার জন্য, লম্বা সময় খেলার জন্য। আল্টিমেটলি আমিতো চাই লং টাইম ক্রিকেট খেলতে, হয়তো লং টাইম ক্রিকেট খেলার জন্য শারীরিক ফিটনেস ও স্কিল অনেক উন্নতি করতে হয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট যখন আমরা খেলি এক জায়গায় পড়ে থাকলে কিন্তু আমরা টিকে থাকতে পারবনা। আমাকে দিনে দিনে অনেক উন্নতি করতে হবে, অনেক উপরে নিয়ে যেতে হবে। হয়তো এই গ্যাপটা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, এই গ্যাপটা আমি কাজে লাগাতে পারবো। সামনে আমাদের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ আছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে এসব ছোট ছোট যে জিনিসগুলো নিয়ে আমি কাজ করছি তা কাজে লাগবে।

*ভারতে অনুশীলন কেমন হবে?
অবশ্যই ভালো সুযোগ থাকবে, এখনোতো দলের সাথে যোগ দেইনি। আগামীকাল যাবো, আর আমি মনে করি যে ওখানে যে কন্ডিশন আমরা তাড়াতাড়ি মানিয়ে নিতে পারবো ইনশাআল্লাহ এবং আমাদের সাথে কোচ আছে, ম্যানেজমেন্ট আছে তারা সাহায্য করবে। আমাদের মধ্যে অনুশীলনের যে আগ্রহ আমাদের প্রস্তুতিটা বেশ ভালো হবে।

*আজকের ম্যাচ
আসলে অবশ্যই আমাদের জন্য বড় একটা সুযোগ। আশাতো করি সিরিজ জয়, এটা আমাদের জন্য অনেক বড় কিছু প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়। আমাদের জন্য সুবিধা হল দুটো ম্যাচের একটা জিতলেই হচ্ছে। আমি মনে করি আমরা যেভাবে খেলছি, যেভাবে আত্মবিশ্বাসী মনে হয় ভালো কিছু হবে।
*পিংক বল

এখন পর্যন্ত আলাদা কোন কাজ করিনাই, যতটুক পেরেছি অনুশীলন করলাম। আশা করি যে ভারতে গিয়ে কোচ আছে ওদের সাথে কথা বলব, আলাপ করবো যে কীভাবে কি করবো। এখম পর্যন্ত যেটা বুঝলাম বল গ্রিপ করে, নাড়াচাড়া করে। আরও পরিষ্কার ধারণা পাবো ওখানে গিয়ে বল বেশি করলে

সাকিব না থাকাতে বড় দ্বায়িত্ব এখন মিরাজের উপর। মিরাজ এর ফর্মে ফিরে আসাটা খুব বেশি জরুরী।

Share:

Author: Wahed Murad

I am passionate for sports , specially in cricket and so i'll do my best to development of sports. I'm also teaching English language and trained at web design and development with fine web arts.