রেকর্ড ভেঙে ভেঙে এগিয়ে চলছেন রিয়ালের টিনএজ সেনসেশন রদ্রিগো গোয়েজ

চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ইতিহাসে দ্রুততম জেড়া গোল, দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ প্লেয়ার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে হ্যাট্রিক, সর্বকনিষ্ঠ প্লেয়ার হিসেবে পার্ফেক্ট হ্যাট্রিক। জ্বী হ্যাঁ পাঠক রিয়ালের ৬-০ গোলে জয়ের দিন ব্রাজিলের রিয়াল মাদ্রিদ ওয়ান্ডার কিড রদ্রিগো গোয়েজ একা এই সবগুলো রেকর্ডের মালিক হয়েছেন।

মাত্র ১৮ বছর ৩০১ দিন বয়সে রদ্রিগো গোয়েজ গতকাল সান্তিয়াগো বার্নাব্যূতে যা করে দেখিয়েছেন তা হয়ত খুব কম খেলোয়াড়ই এ যুগে করার সুযোগ পেতে পারেন। আর এমন হাই ক্লাস পারফর্মেন্স গোয়েজ করলেন রিয়ালের মত বড় ক্লাবের হয়ে, চ্যাম্পিয়ন্স লীগের মত বড় আসরে।

তিনি ভবিষ্যতের বড় তারকা হওয়ার সকর গুনাবলিই দেখিয়েছেন গতরাতের পার্ফেক্ট হ্যাট্রিকের মধ্য দিয়ে। গ্যালাতাসারের বিপক্ষে শুরুর ৭ মিনিটেই জোড়া গোল করে রেকর্ডের শুরু করেন গোয়েজ। ম্যাচের অন্তিম মিনিটে বেনজেমার পাস থেকে বুদ্ধিদীপ্ত গোলে পূরণ করেন নিজের হ্যাট্রিক।

এত অল্প বয়সেই পরিণত ফুটবলারের ছায়া তার মধ্যে স্পষ্ট। মিডিয়া তাকে গত পারফর্মেন্সের পর দিয়ে দিয়েছে নেক্সট নেইমার খেতাবটি। নেইমারের মতই তার উচ্চতাও ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি।

চলতি সিজনে হ্যাট্রিক পাওয়ার আগেও ছয় ম্যাচে স্ট্রার্ট করতে পেরে পাঁচ গোল পেয়েছিলেন রদ্রিগো। তার ধারাবাহিকতায় খুশি কোচ জিদান তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

যখনই সে খেলার সুযোগ পায় তখনই কাজে লাগায়। সে ভালো খেলে।
সে পরিপূর্ণভাবে সজাগ থাকে সবসময়। সে বুদ্ধিমান, দ্রুত শেখে এবং শিখতে আগ্রহী। আমাদের এখন তাকে শান্ত রাখতে হবে, প্রেশার দেওয়া যাবে না।
তার খেলায় আমি অবাক নয়, সে এটার যোগ্য ছিল। টেকনিক্যালি সে অনেক এগিয়ে তবে শারিরীক উন্নতির জন্য তাকে খাটতে হবে।

 

রিয়ালের অভিষিক্ত প্লেয়ারদের মাঝে দ্রুততম (৯৪ সেকেন্ড) গোলের পর ইউরোপীয় রেকর্ডবুকেও নিজের নাম উঠালেন রদ্রিগো।